২১ শে ফেব্রুয়ারীর “ক্ষুদে বাহিনী”সমাচার

0
762

ছোটবেলা থেকে আমরা সবাই দেখে এসেছি, মহান ২১ শে ফেব্রুয়ারী পালন নিয়ে বিভিন্ন পাড়া/মহল্লা কেন্দ্রীক ছোট বাচ্চা গ্রুপের মধ্যে একটা উৎসব আমেজ দৃশ্যপট !যার অন্যতম প্রধান কারন হচ্ছে…বাচ্চাদের শতভাগ নিজস্ব ব্যবস্থাপনায়, একটি বড় অনুষ্ঠান পরিচালনা করারদারুন এক সুযোগ! উদযাপনের অংশ হিসেবে…তারা ২১ শে ফেব্রুয়ারীর কয়েকদিন আগে থেকেই,এলাকায় ঘুরে ঘুরে টাকা/চাদা(ভালোবাসা বলা সমিচীন) সংগ্রহ করে। যার ব্যতিক্রম!ছোটবেলায় আমি নিজেও কিন্তু ছিলাম না।

মূল আলোচনায় আসি……

এবারের ২১ শে ফেব্রুয়ারীর বেশ কিছুদিন আগে থেকেই,প্রায় প্রতিদিন দুই একটি লিলিপুট চাঁদাবাজ! গ্রুপ আমার অফিসে এসেছে। প্রায় সব গ্রুপকেই আমি ২১ শে ফেব্রুয়ারী নিয়ে প্রায় চার/পাচটি প্রশ্ন করেছি।আর যারা যত বেশী ভালো উত্তর দিয়েছে,তাদেরকে তত বেশী খুশি করেছি!উল্লেখ্য এদের টাকার চাহিদা কিন্তু কখনোই বড় এমাউন্টের নয়!!

কিছু উত্তর আমাকে আনন্দিত করেছে, আবার কিছু উত্তর আমাকে অনেক ব্যাথীত করেছে।ব্যাথীত হয়েছি মূলত কলেজ পড়ুয়া ছেলেদের ৭১ আর ৫২ গুলিয়ে ফেলার উত্তর শুনে। তবে সবচেয়ে অবাক হয়েছি(আনন্দিত হয়েছি বলাটাই শ্রেয়)গতকাল মানে ২০ শে ফেব্রুয়ারী বিকেলে গ্রামের প্রাইমারী স্কুলের কিছু বাচ্চাদের উত্তর শুনে!!

ঘটনাস্থল ৮ নং বরগুনা সদর ইউনিয়নের সম্ববত বৈঠাঘাটা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে। মানে ক্রোক স্লুইজ থেকে দক্ষিনে কিছুদুর এগিয়ে।এই লিলিপুট গ্রুপ রাস্তার মাঝে সবাই দাড়িয়ে, আমার বাইকটি থামিয়েছিল। আমি খুব বিরক্ত/রাগান্বিত হয়েই বাইক থামিয়েছিলাম এবং প্লান করেছিলাম এদেরকে আচ্ছামত জব্দ করব! কিন্তু……….

আমাকে নিতান্ত অসহায় বানিয়ে😀 এই প্রাথমিক পড়ুয়াদের দল….
আমার প্রত্যেকটি প্রশ্নের #দাতভাংগা(সঠিক) জবাব দিয়েছিল।তাদের কে আটকানোর জন্য, আমি বেশ কিছু কঠিন প্রশ্নও করেছিলাম।কিন্তু আমি নিরাশ হয়েছি এবং রাগান্বিত হয়ে বাইক থামালেও!!খুব আনন্দ চিত্তে বাইক স্টার্ট করতে পেরেছিলাম। আমি তাদেরকে যথার্ত সম্মানিও দিতে পারিনি!! কারন সে সময় পকেটে ছিল মাত্র একশত টাকা!!তারা সেই একশত টাকা হাতে পেয়ে যে আনন্দিত হয়েছিল…সেটার দাম কিন্তু ছিল অমূল্য❤

#উপলব্দিঃ আমার দেশ কখনোই #দেউলিয়া কিংবা #ব্যর্থ “না পাক এস্তান” হবে না।

জয় বাংলা।

আরিফ খান

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here