জনতার মেয়র শাহাদাত হোসেনের স্ত্রীর উপর হামলা

0
2496

বরগুনা পৌরসভার মেয়র ও জগ প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ শাহাদাত হোসেনের স্ত্রী হেনারা বেগম প্রচারণায় নেমে হামলার শিকার হয়েছেন। ওই ঘটনায় ইভামনি (২০) ও তামান্না লাবনী (২৪) নামের আরো দু’জন আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। চিকিৎসক জানান হেনারা বেগম ও ইভামনি হাতে বেশি আঘাত পেয়েছেন।

রোববার (২৪ জানুয়ারি) বেলা দু’টার দিকে শহরের সদর সড়কের প্রেসক্লাব গলীতে এ ঘটনা ঘটে।

হামলার শিকার বরগুনা পৌরমেয়রের স্ত্রী হেনারা বেগম জানান, তিনি তার স্বামী স্বতন্ত্র প্রার্থী ও বর্তমান পৌর মেয়র মোঃ শাহাদাত হোসেনের পক্ষে প্রচারণার জন্য পৌরসুপার মার্কেটের ব্যবসায়ীদের কাছে যান। এ সময় তার বোনের দুই মেয়ে ইভামনি ও তামান্না লাবনীসহ আরো কয়েকজন নারী সমর্থক সাথে ছিলেন। প্রেসক্লাব গলীতে প্রচারণার সময় মুখে রুমাল বাধা অজ্ঞাত কিছু যুবক তাদের লক্ষ করে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে প্রচারণায় বাধা দেয় এবং একপর্যায়ে উল্লেখিত নারীদের উপর হামলা করে ।

পরবর্তী খবর পেয়ে বরগুনার পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মফিজুরর রহমান, সদর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তারিকুল ইসলামসহ পুলিশ কর্মকর্তা ঘটাস্থলে উপস্থিত হন।

মেয়র ও স্বতন্ত্র প্রার্থী শাহাদাত হোসেনের স্ত্রী হেনারা বেগম অভিযোগ করে বলেন, যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক সাহাবুদ্দিন সাবুর নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ প্রার্থী কামরুল আহসান মহারাজের সমর্থকরা এ হামলা চালিয়েছে। আমরা পৌরবাসীর কাছে এর বিচার দিলাম। এর আগেও সাহাবু্দ্দিনের নেতৃত্বে আমতলাপাড় এলাকায় তাদের উপর হামলা চালায় ও এলাকা থেকে বের করে দেয়। তাছাড়াও প্রতিনিয়ত তাদের সন্ত্রাসীরা স্বতন্ত্র প্রার্থীর নির্বাচনের প্রচার মাইকের যন্ত্রপাতি নিয়ে যায় ও মানুষদের উপর হামলা করে।

পৌর মেয়র শাহাদাত হোসেন বলেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থীর টার্গেট আমি, প্রচারণার শুরু থেকেই হামলার ভয়ে আমি বাসায় অবরুদ্ধ, আমার পরিবারেরও নিরাপত্তা নেই, নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়াটাই আমার অপরাধ। আমার স্ত্রীসহ স্বজনদের উপর এমন হামলার আমি বিচার প্রার্থনা করি।

বরগুনা সদর সার্কেলের পুলিশ সুপার মফিজুরর রহমান বলেন, ঘটনা যারা ঘটিয়েছে তাদের আইনের আওতায় আনা হবে। প্রত্যেক প্রার্থী যাতে নিরপদে প্রচারণা চালিয়ে যেতে পারেন সে জন্য যা যা ব্যবস্থা নেয়ার পুলিশ সে ব্যবস্থা নিয়েছে। অভিযোগ পেলে আমরা আইনগত ব্যবস্থা নেব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here