বরগুনা প্রেসক্লাবে মুশফিক আরিফের সদস্য পদ স্থগিত

0
3020

বরগুনা প্রতিনিধিঃ

পেশাগত অসদাচরণসহ একাধিকবার সাংগঠনিক শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় সাংবাদিক মুশফিক আরিফের সদস্যপদ স্থগিত করেছে বরগুনা প্রেসক্লাব। দীর্ঘ তদন্ত শেষে গত ১০ সেপ্টেম্বর শুক্রবার সন্ধ্যায় বরগুনা প্রেসক্লাবের এক সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

এর আগেও একই অভিযোগে বরগুনা প্রেসক্লাব থেকে দুই দুইবার বহিস্কৃত হওয়ায় এবারে তিনমাসের জন্যে তার সদস্যপদ স্থগিত করা হয় এবং একই অভিযোগ পূণরায় উত্থাপিত হলে তাকে স্থায়ীভাবে বহিস্কার করা হবে বলেও সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়।

বরগুনা শহরের একটি মোটর সাইকেল গ্রেজের মালিক সুমন চন্দ্রকে অন্যায়ভাবে মারধর করার ভিডিও ভাইরাল হলে বিচার চেয়ে বরগুনা প্রেসক্লাবে আবেদন করেন ভুক্তভোগী সুমন চন্দ্র। এছাড়া প্রেসক্লাবের একাধিক সদস্যের সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণের পাশাপাশি সাংগঠনিক শৃংখলা ভঙ্গের অভিযোগ উত্থাপিত হলে তিনসদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

বরগুনা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি জাকির হোসেন মিরাজকে আহবায়ক করে সাবেক সাধারণ সম্পাদক স্বপন দাস এবং জাহাঙ্গীর কবির মৃধাকে সদস্য করে তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। দীর্ঘ প্রায় দু’মাস ধরে তদন্ত সম্পন্ন করে প্রতিবেদন প্রদান করলে গত ১০ সেপ্টেম্বর শুক্রবারের সভায় তা উপস্থাপিত হয়।

এর আগেও ২০০৮ ও ২০০৯ সালে একই অভিযোগে সাংবাদিক মুশফিক আরিফ বরগুনা প্রেসক্লাব থেকে দুইবার বহিস্কৃত হন। সে সময় ষড়যন্ত্রমূলকভাবে হয়রানির অভিযোগ এনে বরগুনা প্রেসক্লাবের সদস্য এম জসীম উদ্দিন মুশফিক আরিফের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন। তার অভিযোগের ভিত্তিতে সেসময় বরগুনা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি এড. আবুল কালাম আজাদকে আহবায়ক করে সাবেক সভাপতি জাকির হোসেন মিরাজ ও আবু জাফর সালেকে সদস্য করে তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

ওই তদন্ত কমিটির তদন্তে বরগুনা প্রেসক্লাব ও প্রেসক্লাবের সদস্য এম জসীম উদ্দীনের বিরুদ্ধে মুশফিক আরিফের ষড়যন্ত্রমূলক হয়রানি ও মিথ্যা অপপ্রচারের অভিযোগ প্রমানিত হলে তাকে স্থায়ীভাবে বহিস্কার করা হয়।

এর আগে ২০০৭ সালে মুশফিক আরিফ তৎকালীন সেনাসমর্থিত সরকারের বরগুনায় নিযুক্ত এক কর্মকর্তার প্রভাব খাটিয়ে প্রয়োজনীয় শিখ্সাগত যোগ্যতা না থাকা সত্বেও অগঠনতান্ত্রিক ও অসাংগঠনিকভাবে বরগুনা প্রেসক্লাবের সদস্য হন। পরবর্তীতে এ বিষয়ে অভিযোগ উঠলে ২০০৮ সালে পূণরায় তার সদস্য পদ বাতিল করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে সাংবাদিক মুশফিক আরিফের মুঠোফোনে একাধিকবার কল করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here